Tahseenation এর উপর স্ক্রিনশট বাসিদের হামলা

Tahseenation এর উপর স্ক্রিনশট বাসিদের হামলা

Tahseenation, screenshort group
Tahseenation 

নোবেলকে রোস্ট করায় এবং স্ক্রিনশট গ্রুপের মেম্বারদের মুর্খ বলায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে শুরু হয়েছে এক প্রকার ঝর।  স্ক্রিনশট গ্রুপের মেম্বাররা বলেন তোমাকে খেয়ে দেয়ার ক্ষমতা আমাদের আছে। তোমার চ্যানেলে ৯ লাখ সাবস্ক্রাইবার আর আমাদের গ্রুপে ১ মিলিয়ন আছে বলে সবাইকে Unsubscribe করার জন্য বলা হয় গ্রুপের মেম্বারদের। এবং কিছু সময়ের মধ্যেই শুরু হয় unsubscribe মিশন। এই ঘটনায় তাহসিনেশন ও নোবেল এর মাঝখানে রবিন্দ্রনাথ ঠাকুরকে নিয়েও হচ্ছে নানা রকম কথা এক সময় রবিন্দ্রনাথ ঠাকুর বিরক্ত হয়ে নিজেই তাদের পোস্টে কমেন্ট করে বলেন আমি কি করছি?
Tahseenation, screenshort group



এবং তারা তাহসিনেশনের দিয়েছেন বিভিন্ন ধরনের নাম যেমন - বস্তিনেশ, বাল্টিনেশন,  সেনিট্রিশন সহ আরো হাজারো নাম। তবে আমার জানা নেই কোনটা স্থাই হবে। তাহসিনেশনের বর্তমান অবস্থা নাকি এমন
Tahseenation, screenshort group
স্ক্রিনশট গ্রুপের আল-আমিন শান্ত নামের এক ব্যক্তি তো তাকে নিয়ে কবিতাই বানিয়ে ফেলেছে

  ইটস মি তাহসিনেশন,
খাই ওনলি পঁচ্চা বেসন।
করিনা তো ভালো কিছু,
আংগুল দেই ক্রিয়েটিভদের পিছু।
মারতে থাকি মানুষের কাজে ভ্রান্তির ঢিল,
ভালো কাজেও মেরে দেই কলঙ্কের সিল।

কারো বানানো কন্টেন্ট,যতই হোক ভালো,
উল্টাপাল্টা টপিক দিয়ে কন্টেন্টাই করে দেই কালো।

যতই করুক ক্রিয়েটিভ কাজ, সে খুজবে শুধু ভুল,
সুযোগ ফেলে ভালো কাজেও মারবে বিষের শুল।
তাসিনের অঙ্গে তখন রঙে ভরা ফাগুন,
তাইতো নিজ পশ্চাৎদেশে নিজেই লাগায় আগুন।

ভালো একটা করে কাজ
হয়ে যাস মহারাজ,
নিজের রাজ্যে তুই নিজেই গুরু
আবার করে দেস বস্তি মার্কা রোস্টিং এর শুরু।
ভুরে ভুরে কাজ করার নেই কোন দরকার
কাজের মতো একটা কর সবাই করবে জয়জয়কার।

তাসিনেসনেরও আছে কিছু পাচাটা ফ্যান,
ক্রিয়েটিভিটির 'ক' ও বুঝেনা, করে ঘ্যানঘ্যান।

ওদেরকেও বুঝতে হবে,
ভিউয়ের জন্য তোমাদের সামনে দেখাবে কত্ত ভালো দিক,
আসলেই কি ভালো মানুষ খুজতে যায় অন্য জনের কালো দিক?
রোস্টের নামে করছে সে নোংরামি,
এতে করে ব্যক্তি জিবনে হচ্ছে অনেকেই  হয়রানি।

নতুন কিছু করতে গেলে হবেই খানিকটা ভুল,
ব্যার্থতাকে পেছনে রেখে এগোনোই হবে লক্ষের মূল।

কাজের শুরুতেই তাদের নাম যদি দেয়া হয় ভন্ড?
ক্যারিয়ার শুরুর আগেই নতুনরা তো হবেই লণ্ডভণ্ড।
এখনি না নেয়া হয় কোন ধরনের ব্যাবস্থা,
ভবিষ্যতে কি হবে এ জাতিরঅবস্থা?

পারলি না নিজে থেকে করতে একটুখানি ভালো কাজ,
তুই আবার দাবি করস তুই ইউটিউবের মহারাজ,
আর পারিস না কোন কিছু,
থাকিস মানুষের পশ্চাৎের পিছু।
বন্ধ কর বানানো তিলকে তাল,
না হলে থাকবে না তোর পিঠের একটু খানি ছাল।

আর করিস না ভনভন,
জনগণের কথা শোন,
রোস্ট টোস্ট বাদ দে,
নতুনদের কাজে উৎসাহ দে,
ভুল হলে পারসোনালি বুঝিয়ে দে,

লোকদেখানো কাজ করা এখন থেকেই বাদ দে,
ভালো কাজ যেখানে সেখানেই হাত দে।
লোকদেখানো কাজ নয়তো কোন কাজ,
পারলে করো ভালোকিছু না পেয়ে লাজ।

আপমার মনের কথা অবশ্যই কমেন্টে জানাবেন।  

1 comment:

Powered by Blogger.